সন্তানের দায়িত্ব নেননি শাকিল খান, অভিযোগ সাবেক স্ত্রীর!

বিনোদন

Share This News !

এক সময়ের আলোচিত নায়িকা সুমনা জনা। ৪০টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করা এই নায়িকা চলচ্চিত্রকে বিদায় জানিয়ে পাড়ি জমিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে।

বর্তমানে সেখানে স্বামী-সন্তান নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস করলেও মাঝেমধ্যেই দেশে আসেন। সম্প্রতি ঢাকায় এসে জনা সাবেক স্বামী চিত্রনায়ক শাকিল খানের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন।

 

তার অভিযোগ, ‘শাকিল আমাদের একমাত্র সন্তান আরিয়ান খানের দায়িত্ব নেননি। তার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর থেকে অর্থাৎ ২০০৩ থেকে আরিয়ান আমার সঙ্গেই আছে। ওর বয়স এখন ১৮। ’

জনা বলেন, ‘প্রতিবেশীদের মতো মাঝেমধ্যে খবর নেয়। যেমন তার যখন বিয়ে হয়নি তখন সে রেগুলার আসতো। ওর বয়স সাত-আট বছর তখন প্রতিবার ঈদে ওকে (আরিয়ান) নিয়ে শপিংয়ে যেত। এরপর ২০১৮ সালেও এসেছিল। তখন ও বাবাকে ঠিকমত চেনেও না। ও যেতে চায়নি। তারপরে মা জোর করে পাঠিয়েছেন। ’

বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন শাকিল খানও। তিনি জনাকে বিয়ে ও সন্তানের কথা স্বীকার করে বলেন, ‘সন্তানের দায়িত্ব কে না নিতে চায়। নিশ্চয়ই এর পেছনে এমন কিছু আছে, যার কারণে তা হয়ে ওঠেনি। বিষয়টি হচ্ছে, আমাদের প্রত্যেকের জীবনে এমন কিছু বিষয় থাকে যা সামাজিক জীবনে সবাইকে ইচ্ছা করলেও বলা যায় না। তাই আমি এ নিয়ে এর বেশি কিছু বলতে চাই না। ’
 
২০০২ সালে ‘হৃদয়ের বাঁশী’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে নায়িকা জনার। নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম এ সিনেমায় তিনি নায়ক হিসেবে পান শাকিল খানকে। সে বছরই তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। যদিও পরের বছরই তাদের বিচ্ছেদ হয়। সেই সংসারের সাক্ষী হয়ে আছে তাদের একমাত্র সন্তান আরিয়ান।

পরে ২০০৯ সালে জুবায়ের হোসেইন নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে দ্বিতীয় বিয়েতে আবদ্ধ হন নায়িকা জনা। অন্যদিকে, শাকিল খান চলচ্চিত্র ছেড়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন। চলচ্চিত্রে অভিনয় না করলেও সিনেমা সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে তাকে দেখা যায়। সর্বশেষ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে তিনি কার্যকরী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। যদিও তিনি নির্বাচনে হেরে গেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.